বিদ্যুতের বিল নিয়ে নতুন পদক্ষেপ কেন্দ্রের! জানলে খুশি হবেন আপনিও।

দেশের জনতা,মোদীজির এই চার বছরের শাসনকালে এটা বুঝে গিয়েছে যে দেশে মোদী সরকার আসার পর থেকে ব্যাপকহারে পরিবর্তন হয়েছে। মোদী সরকার আসার পর দেশের গরীবদের উন্নতির দিকে সবথেকে বেশি নজর দিয়েছে। উজ্জ্বলা যোজনা, গরিবী হাটাও, সবকা সাথ সবকা বিকাশ ইত্যাদি নানান প্রকল্পের সূচনা করেছে মোদী সরকার। নিজের রাজনৈতিক স্বার্থের জন্য নয় বরং দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে এই সমস্থ পদক্ষেপ নিয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সরকার।

এছাড়াও দেশের প্রতিটি বাড়িতে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার জন্য মোদী সরকার যে সকল প্রচেষ্টা গুলি করেছেন সেটা এর আগে ভারতবর্ষের কোনো সরকার করতে পারে নি। এবার বিশেষ সূত্রে জানা গিয়েছে যে, দেশের জনগণের কথা ভেবে মোদী সরকার বিদ্যুত এর বিল নিয়ে নিয়ে নিলেন এক যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত।

আপনাদের জানিয়ে রাখি যে, অনেক সময় এমন হয় যে কোনো পরিবার বিদ্যুৎ হয়তো কম খরচ করেছেন কিন্তু যখন তাদের বিল আসে তখন সেটা অনেক বেশি পরিমাণে চলে আসে। যার ধারণাও তারা করতে পারেন না। এর ফলে বেশ অসুবিধাজনক পরিস্থিতিতে পরে যান তারা। আবার কখন এমন হয়েছে যে, কোনো ব্যক্তি ঠিক সময়ে বিদ্যুতের বিল জমা করে এসেছেন। কিন্তু তার সত্ত্বেও পরের মাসের বিলের সাথে তার আগের মাসের বিলের টাকা ফের যোগ হয়ে গিয়েছে। তারপর দুটি বিল মিলে মোট একটা বড় অঙ্কের টাকা চলে এসেছে বিল হিসাবে। এর ফলে সেই গ্রাহক কে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে। সাধারণ মানুষের এই সমস্ত সমস্যার কথা দেখার পর মোদী সরকার সাধারণ মানুষের সুবিধার জন্য নিয়ে নিলেন এক যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত। যদি আপনার বাড়ীতেও ইলেকট্রিক মিটার রয়েছে তাহলে এই খবর টি শুধুমাত্র আপনার জন্যই। পুরো খবর টি পড়ুন এবং এর ফলে উপকৃত হলে অবশ্যই শেয়ার করুন।

যে তিনটি সুখবর জ্বালানী মন্ত্রী দিয়েছেন সেগুলি হল।
প্রথম:- এবার গ্রাহকদের রেজিস্টার করা মোবাইল নাম্বারে দিয়ে দেওয়া হবে বিদ্যুৎ বিল সম্পর্কিত সমস্ত তথ্য। প্রতিমাসে আপনি কত পরিমাণ বিদ্যুৎ খরচ করেছেন, কত টাকা বিল এসেছে আপনার, বিল জমা দেওয়ার শেষ তারিখ এবং আপনি যে বিল ঠিক সময়ে জমা দিয়েছেন। এই সকল বিষয়ে সমস্ত তথ্য গ্রাহক দ্বারা রেজিস্টার করা মোবাইল নাম্বারে পাঠিয়ে দেওয়া হবে বিদ্যুৎ বিভাগের তরফে।

দ্বিতীয়:- এবার আর বিল জমা দেওয়ার জন্য আপনাকে আর বিদ্যুৎ বিভাগের অফিসে গিয়ে লাইন দ্বারাতে হবে না। আর বেশি বিল আসার ভয় পেতেও হবে না। কারণ এবার থেকে আপনি ঘরে বসেই মোবাইল থেকে রিচার্জ করে নিতে পারবেন আপনার মিটার নাম্বার দিয়ে। তারপর আপনি ব্যবহার করতে পারবেন আপনার নিজস্ব বিদ্যুৎ। আপনি যতটা পরিমাণ রিচার্জ করবেন ততোটাই বিল ব্যবহার করতে পারবেন। এই পক্রিয়া সম্পন্ন করার জন্য সরকার আরো কিছু মাস সময় নিতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

তৃতীয়:- আগে বিল জমা দেওয়ার সময়সীমা খুব কম দিনের জন্য রাখা হত। এর ফলে গরীব পরিবার গুলিকে অসুবিধার মধ্যে পড়তে হত। অনেক সময়ে সঠিক সময়ে বিল না জমা দিতে পারার জন্য তদের কে ফাইন দিতে হয়েছে। কিন্তু নুতন আইনে বিল জমা দেওয়ার শেষ তারিখ বাড়িয়ে দেওয়া হবে বলে জানা যাচ্ছে। এর ফলে খুবই সুবিধা হবে দেশের সাধারণ জনগণের এমনটাই দাবি এক আধিকারিকের।
#অগ্নিপুত্র

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close