কর্ণাটকে পতিশ্রুতি দিয়েও কৃষি ঋণ মুকুব করেনি কংগ্রেস! হতাশায় আত্মহত্যা করলো কৃষক।

রাজনৈতিক দলের দালালি করতে গিয়ে দেশের মিডিয়া কতটা নিচে নেমে গেছে তা যে কোনো সাধারণ ব্যাক্তির ধারণার বাইরে। গতকাল কিছু দালাল মিডিয়া কাশ্মীরের দেশদ্রোহী জিহাদি পাথরবাজদের নিরীহ বলে দাবি করেছিল। যা পরিষ্কার প্রমান করে যে সংবিধানের চতুর্থ স্তম্ভ বলে পরিচিত মিডিয়া এখন বিদেশী ফান্ডিং গ্রহণ করে সেনা বিরোধী কার্যকলাপ চালাতে নেমে পড়েছে। আসলে ভারতের বেশিভাগ মিডিয়া কংগ্রেস ও বামপন্থীদের দালালি করেই এজেন্ডা চালায় যার কারণে দেশ বিরোধী লেখা প্রকাশিত করতেও লজ্জা বোধ করে না এরা। কর্ণাটক ও পাঞ্জাবে সরকার গঠনের আগে কংগ্রেস দাবি করেছিল যে কৃষকদের ঋণ মুকুব করে দেওয়া হবে।

কিন্তু আজ অবধি দালাল মিডিয়া কংগ্রেসকে এই প্রশ্ন করে না যে কেন কৃষকদের ঋণ মুকুব করা হয়নি। কর্ণাটকে সরকার গঠনের আগে নির্বাচনী সভায় কংগ্রেস দাবি করেছিল যে কৃষকদের ঋণ মুকুব করে দেওয়া হবে। কিন্তু JDS ও কংগ্রেসের মিলিত সরকার গঠন হওয়ার পরেও আজ অবধি কৃষকদের ঋণ মুকুব হয়নি। যার ফলাফল এখন হাতেনাতে দেখা যাচ্ছে।

কর্ণাটকের বাগালকোটে একজন কৃষক আত্মহত্যা করে নিয়েছেন। যে কৃষক আত্মহত্যা করেছে তার নাম হামপান্না হুগার। ইনার বয়স ৫৬ বছর, ইনার উপর ঋণের বোঝা ছিল যা তিনি মেটাতে পারছিলেন না।তাই শেষমেষ চাপ সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যা করে নিয়েছেন। রাক্ষুসে মানসিকতার নেতারা ঋণ মাফ করে দেওয়ার পতিশ্রুতি দিয়েছিল কিন্তু ক্ষমতায় তার সমস্ত কিছুই ভুলে গেছে।

রাক্ষুসে নেতারা এখন নিজেদের খাজানা ভান্ডার পূরণ করতে ব্যস্ত তাই কৃষকদের নিয়ে চিন্তা করার দায় তাদের নেই। অন্যদিকে মিডিয়াও এই ঘটনা নিয়ে সম্পূর্ণভাবে চুপ হয়ে রয়েছে। তাদের পাওনা পেয়ে অত্যন্ত সন্তুষ্টির সাথে এজেন্ডা চালাতে ব্যাস্ত হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close