ভারতের চাপের কাছে মাথা নত করলো পাকিস্থান!শেষমেষ জেলমুক্ত করতে বাধ্য হলো এই ভারতীয়কে।

গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে পকিস্থানে ৬ বছর জেল বন্দি হয়ে থাকার পর হামিদ আনসারী শেষমেষ নিজের দেশ ভারতে ফিরে আসতে পারলেন। বুধবার দিন হামিদ আনসারী উনার মায়ের সাথে দিল্লিতে বিদেশ মন্ত্রী সুষমা স্বরাজের সাথে দেখা করেন। সুষমা স্বরাজ অভিনন্দ জানিয়ে হামিদ আনসারীকে কাছে টেনে নেন। বিদেশ মন্ত্রীর কাছে আসা মাত্র হামিদ আনসারীর চোখে জল আসে। হামিদের মা সেই সময় ওই স্থানে উপস্থিত ছিলেন, উনিও সুষমা স্বরাজকে ধন্যবাদ জানান তার ছেলেকে দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য। হামদি আনসারীর মা, সুষমা স্বরাজজিকে ধন্যবাদ জানাতে গিয়ে বলেন, আমার ভারত মহান, আমার ম্যাডাম মহান।

উনি পাকিস্থান থেকে নিজের ছেলেকে ফিরিয়ে আনার পুরো ক্রেডিট বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজকে দেন এবং বলেন, ম্যাডাম সবকিছু করেছে। জানিয়ে দি ভারতের লাগাতার চাপে হামিদ মঙ্গলবার দিন পাকিস্থানের জেল থেকে ছাড়া পেয়েছে। নভেম্বর ২০১২ সালে হামিদ আনসারী রোজকারের খোঁজে দেশ ছেড়ে কাবুলের পথে রওনা দিয়েছিলেন। এরপর থেকে উনার নিখোঁজ হওয়ার খবর সামনে এসেছিল।

জানা গেছে সোশ্যাল থেকে মিডিয়ায় থেকে উনার বন্ধুত্ব এক পাকিস্থানি মেয়ের সাথে হয়েছিল। মেয়েটির বাড়ি থেকে জোর করে বিয়ে দেওয়া আটকানোর উদ্দেশ্যে হামিদ বহুবার পাকিস্থানের মধ্যে যাতায়াত করেন। ১২ নভেম্বর ২০১২ সালে আনসারী পাকিস্থানের পেশোয়ার যাওয়ার জন্য আফগানিস্থানের সীমা পার করেন। সেই স্থানেই পাকিস্থানের গুপ্তচররা উনাকে ধরে ফেলেন।

ভারত সরকার হামিদকে ফিরিয়ে আনার জন্য ৯৬ বার পাকিস্থানে রাজনৈতিক নোটিস প্রেরণ করেছিল। যারপর শেষমেষ পাকিস্থান চাপে পড়ে ও প্রমাণের অভাবে হামিদকে মুক্ত করে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close