আতঙ্কবাদী ও পাথরবাজদের জন্য খারাপ খবর! জম্মুকাশ্মীরে লাগু রাষ্ট্রপতি শাসন।

গত কয়েক মাস আগে জম্মু কাশ্মীরে মেহেবুবার সাথে জোট ভেঙ্গে দিয়েছিল বিজেপি। কারণ মেহেবুবা সরকার ভারতীয় সেনা জাওয়ানদের কাজে নানাভাবে বাঁধা সৃষ্টি করেছিল। আর তখন থেকেই সেখানে শুরু হয় রাজ্যপাল শাসন। কিন্তু এবার কেন্দ্রীয় সরকার জম্মু কাশ্মীরে জারি করল রাষ্ট্রপতি শাসন। এর আগে এই রাজ্যে আরেকবার রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হয়েছিল সেটা ১৯৯৬ সালে। তারপর এই দ্বিতীয়বার চালু হল রাষ্ট্রপতি শাসন। দেশের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ বুধবার জম্মু কাশ্মীরে রাষ্ট্রপতি শাসন জারির উপর সিলমোহর দিয়ে সই করে দিয়েছেন। এবং জানা গিয়েছে যে, বৃস্পতিবার মধ্যরাত থেকেই সেখানে লাগু হয়ে যাবে রাষ্ট্রপতি শাসন।

জম্মু কাশ্মীরে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করার ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে সোমবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার একটি বৈঠক হয়। আর সেই বৈঠকেই প্রধানমন্ত্রী সিদ্ধান্ত নেন যে জম্মু কাশ্মীরে লাগু করা হবে রাষ্ট্রপতি শাসন। সূত্রের খবর জম্মুর রাজ্যপাল সত্যপাল মালিকের এক বিশেষ রিপোর্ট এর ভিত্তিতে সরকারের এমন সিদ্ধান্ত।

কেন্দ্রীয় সরকার জম্মু কাশ্মীরে রাজ্যপাল শাসন জারি করে গত জুন মাসে। যখন সেই রাজ্যের পিডিপি এবং বিজেপির জোট বন্ধন থেকে নিজেদের সমর্থন তুলে নেন গেরুয়া শিবির, সেই সময় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তরফে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এবং সেখানকার রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক গত মাসে জম্মুর বিধানসভা ভেঙ্গে দেন কারণ তিনি জানান যে সম্পূর্ণ আলাদা মতামতযুক্ত দল গুলি কখন সঠিকভাবে সরকার গঠন করতে পারবে না।

এই মুহূর্তে সন্ত্রাসবাদী এবং রাজনৈতিক ডামাডোলের কারণে জম্মু কাশ্মীর রাজ্যের চরম অচলাবস্থা দেখা গিয়েছে। এর ফলে রাজ্যটি এক অন্যপর্যায়ে চলে যাচ্ছে। সেই জন্যই কেন্দ্রীয় সরকার সিদ্ধান্ত নেন যে খুব তাড়াতাড়ি সেখানে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করা হবে।
আপনাদের একটি তথ্য দিয়ে রাখি এই জম্মু কাষ্মীর আমাদের দেশে এক আলাদা রাজ্যের স্বিকৃতি পেয়েছে, এর ফলে এখানে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করার আগে রাজ্যপাল শাসন জারি করতে হয় সরাসরি কিছু করা যায় না। সেই জন্যই কেন্দ্র সরকার জুন মাসে রাজ্যপাল শাসন জারি করেন এবং এখন রাষ্ট্রপতি শাসন। এরপর সরকার জম্মুকাশ্মিরকে তিন ভাগে ভাগ করে কেন্দ্র শাসিত রাজ্যে পরিণত করার উপর কাজ করবে।
#অগ্নিপুত্র

Related Articles

Leave a Reply

Close