Trending

চলে এলো অভিনন্দনের বডি টেস্ট রিপোর্ট..

ইন্ডিয়ান এয়ার ফোর্সের উইং কামান্ডোর অভিনন্দন পুরানো আমলের MIG-21 নিয়ে এডভান্স f-16 কে উড়িয়ে দিয়েছিলেন। এই ঘটনা শুধু ভারত নয় পুরো বিশ্বজুড়ে প্রসিদ্ধ হয়েছে। তবে MIG-21 পুরানো আমলের হওয়ায় এই বিমানও ক্র্যাশ হয়ে যায় এবং দুর্ভাগ্যবশত পাকিস্থানের প্রান্তে পড়ে যায় যার জন্য উনি পাকিস্থানের বন্দিতে পরিণত হয়েছিলেন। যদিও মোদীর চাপের দরুন পাকিস্থান ৫৬ ঘন্টার মধ্যে কামান্ডোর অভিনন্দনকে ছাড়তে বাধ্য হয়। তবে পাকিস্থান থেকে আসার পর কামান্ডোর অভিনন্দের মেডিক্যাল চেকআপ করা হয়েছিল এবং সেই রিপোর্টও সামনে চলে এসেছে।

জানিয়ে দি, এখন কামান্ডোর অভিনন্দনকে এয়ার ফোর্সের মেসে ১ মাস কাটাতে হতে পারে। সেখানে উনার থেকে পাকিস্থানে কাটানো প্রত্যেক মুহূর্তের বিষয়ে খুঁটি নাটি জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে এবং আরো একটা রিপোর্ট তৈরি করা হবে। তবে আপাতত আসা রিপোর্ট অনুযায়ী জানা গেছে যে পাকিস্থানে অভিনন্দকে মানসিক প্রতারণা করা হয়েছিল। পাকিস্থানে উনাকে ঘুমাতে পর্যন্ত দেওয়া হয়নি বলে জানা যাচ্ছে। উইং কামান্ডোর অভিনন্দনের চোখে গভীর আলো ফেলা হয়েছিল

শুধু এই নয়, উনাকে পাকিস্থানে যে কামরাতে রাখা হয়েছিল সেখানে প্রচুর সাউন্ড দিয়ে মিউজিক বাজানো হতো। কামান্ডোর অভিনন্দনকে ব্যাপকভাবে মানসিক অত্যাচার করা হয়েছিল। উনি যখন পাকিস্থান থেকে ভারতে প্রবেশ করেছিলেন তখন উনার চোখে মুখে কোনো আনন্দ ছিল না সেটা দেখেই আন্দাজ করা হচ্ছিল যে উনার উপর মানসিক অত্যাচার করা হয়েছে। আর এখন সেই অনুমান একদম সঠিক হয়ে রিপোর্ট সামনে এসেছে।

একইসাথে উনাকে দেওয়া তরল খাদ্যে ড্রাগস মিশিয়ে দেওয়া হয়েছিল বলেও রিপোর্ট সামনে আসছে। তবে উনার বডিতে কোনো চিপ ঢুকিয়ে দেওয়া হয়নি বলে এখনো অবধি খবর সামনে আসছে।জানিয়ে দি, জেনেভা কনভেনশন অনুযায়ী কোনো দেশ যুদ্ধবন্দির উপর অত্যাচার করতে পারবে না। কিন্তু জিহাদি দেশ পাকিস্থান এই নিয়ম উলঙ্ঘন করে কামান্ডোর অভিনন্দনকে মানসিকভাবে ব্যাপক অত্যাচার করে। পাকিস্থান কামান্ডোর অভিনন্দকে যেভাবে অত্যাচার করেছে সেই অত্যাচার কোনো সাধারণ মানুষের উপর করা হলে সেই সাধারণ মানুষ ১ মাস বিছানা থেকে উঠার মতো অবস্থায় থাকবে না। কিন্তু ভারতীয় সেনাকে এমনভাবে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় যে এই সমস্ত অত্যাচার সত্ত্বেও সেনা জওয়ান মানসিক ও শারীরিকভাবে নিজেকে সামলে রাখতে পারে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close