পাকিস্তানে শতাব্দী প্রাচীন ‘গুরু নানক মহল” এ ভাঙচুর চালালো স্থানীয়রা! লুটেপুটে নিয়ে যাওয়া হল দামি সামগ্রী



পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রান্তে অবস্থিত ঐতিহাসিক ‘গুরু নানক মহল” এর ভাঙচুর এর মামলা সামনে এসেছে। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, কিছু স্থানীয় মানুষ ভূমিরক্ষা আধিকারিকদের সামনে শতাব্দী প্রাচীন এই গুরু নানক মহলের একটি বড় অংশ ভেঙে দামি দামি জানালা, দরজা খুলে নিয়ে চলে যায়। এলাকার অনেকেই প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের কাছে এই ধ্বংসলীলায় জড়িত ব্যাক্তিদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি জানিয়েছে।

পাকিস্তানের ‘ডন” পত্রিকায় একটি রিপোর্টে বলা হয়েছে, পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রান্তে অবস্থিত এই চারতলার শিখ মন্দিরে শিখ ধর্মগুরু গুরু নানক ছাড়াও হিন্দু দেব দেবীদের ছবি এবং মূর্তি ছিল। শোনা যায় যে, এই ঐতিহাসিক বাবা গুরু নানক মহল চারশ বছর আগে বানানো হয়েছিল, আর এখানে ভারত সমেত গোটা বিশ্বের শিখেরা আসতেন।

লাহোর থেকে প্রায় ১০০ কিমি দূরে নারোবাল শহরে তৈরি এই মহলে ১৬ টি কামরা ছিল। প্রতিটি কামরায় কমপক্ষে তিনটি করে দরজা আর দামিদামি ঝালর ছিল। রিপোর্টে চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে এসেছে যে, আধিকারিকদের কোন কিছু না বলাতেই স্থানীয় মানুষ এই ঐতিহাসিক গুরু নানক মহলে ধ্বংসলীলা চালিয়ে লুঠপাট চালায়।

যদিও এটাই প্রথম না যে, পাকিস্তানে কোন অমুসলিমদের ধর্মীয় স্থানে ভাঙচুর চালানো হল। এর আগেও পাকিস্তানের বহু হিন্দু মন্দির দখল, ভাঙচুর চালানোর কত হাজার হাজার ঘটনা সামনে এসেছে। রিপোর্ট অনুযায়ী, পাকিস্তানের প্রায় ৯০ শতাংশ মন্দির দখল করে রেখেছে সেখানকার মানুষেরা। আবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বড়াই করে বলেন, সংখ্যালঘুরা ভারতের থেকে সুখে পাকিস্তানে আছে।



Source link

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close