ব্রেকিং খবরঃ তৃণমূলের বিরুদ্ধে চরম দুর্নীতির অভিযোগ এনে, দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন ৩০০ এর বেশি নেতা কর্মী



লোকসভা ভোটের ফলাফল ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই এরাজ্যে দ্রুত গতিতে বৃদ্ধি পাচ্ছে বিজেপির শক্তি। রোজই শাসক দল এবং বিরোধী দল থেকে একের পর এক নেতা, কর্মী ও সমর্থক যোগ দিচ্ছেন বিজেপিতে। এছাড়াও শাসক দলের হাত থেকে একের পর এক পুরসভা ও পঞ্চায়েত ছিনিয়ে নিয়ে তৃণমূলের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করছে বিজেপি।

এর আগে বিজেপির সাংসদ অর্জুন সিং এর হাত ধরে রাজ্যের প্রথম পুরসভার দখল নেই বিজেপি। তারপর একের পর এক পঞ্চায়েত এবং পুরসভা থেকে সদস্য ও কাউন্সিলরেরা বিজেপিতে যোগ দিয়ে চিন্তা বাড়াচ্ছে তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জীর। দলের এই ভাঙন রুখতে চরম তৎপর তৃণমূল নেতৃত্ব। বারবার মিটিং করেও কোন ফল হচ্ছে না।

আরেকদিকে বিজেপিকে রুখতে রাজ্য জুড়ে সন্ত্রাসে আবহাওয়া সৃষ্টি করেছে শাসক দল তৃণমূল। গতকাল উত্তর ২৪ পরগণা জেলার সন্দেশখালিতে চার বিজেপি কর্মীকে হত্যা করে তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা। যদিও এই ঘটনার দায় স্বীকার করেছি তৃণমূল নেতৃত্ব। উল্টে বিজেপির ঘাড়েই দোষ চাপিয়েছে তাঁরা।

একদিকে লাগামহীন সন্ত্রাস আরেকদিকে চরম দুর্নীতি একেবারে গোদের উপর বিষফোঁড়া হয়ে দাঁড়িয়েছে তৃণমূলের কাছে। আর এবার তৃণমূলের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে দল ছাড়লেন একাধিক নেতা কর্মীরা। তাঁরা সবাই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন।

রবিবার খেজুরিতে তৃণমূল ও সিপিএম ছেড়ে ৩০০ এর বেশি নেতা, কর্মী ও সমর্থক যোগ দেন বিজেপিতে। যোগ দেওয়া নেতাদের মধ্যে তৃণমূলের সংখ্যালঘু নেতা কর্মীরাও গেরুয়া পতকা হাতে তুলে নেন। তৃণমূল সিপিএম ছেড়ে আসা নেতা কর্মীদের হাতে পতাকা তুলে দেন জেলা সাংগঠনিক সভাপতি তপন মাইতি। তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া নেতা কর্মীরা বলেন, ‘তৃণমূলে দুর্নীতি চলছে। পুরোনো কর্মীদের গুরুত্ব দেওয়া হয় না। দুর্নীতিবাজ নেতারাই আখের গোছাচ্ছেন।”



Source link

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close