বাড়ি থেকে মাদ্রাসায় তুলে নিয়ে গিয়ে ১৫ বছরের নাবালিকাকে ধর্ষণ করলো মৌলবি!



কানপুরঃ আবাস বিকাশ হংসপুরম, নৌবস্তা এলাকায় রবিবার সকালে মৌলানা জাভেদ এক ১৫ বছর বয়সী কিশোরীকে ঘর থেকে তুলে মাদ্রাসায় এনে ধর্ষণ করলো। মৌলানার লালসার শিকার হওয়া দুই ঘণ্টা পর বাড়ি ফিরে কিশোরী তাঁর পরিজনদের সমস্ত কথা জানায়। এরপর পরিজনেরা কিশোরীকে নিয়ে থানায় গিয়ে তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে। কানপুর পুলিশ মোবাইল লোকেশন খতিয়ে দেখে অভিযুক্ত আকবরপুর নিবাসী মৌলানা জাভেদ-কে গ্রেফতার করে। আরও দুজনের বিরুদ্ধে তদন্তের পর পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নাবালিকা জানায়, রবিবার সকাল ৫ঃ৩০ নাগাদ অভিযুক্ত মৌলানা তাঁর বাড়ি যায়। নাবালিকার বাড়ি পৌঁছে  তাঁকে দিকে ব্যাংকের ফর্ম ভরানোর নাম করে মাদ্রাসায় নিয়ে যায়। মাদ্রাসায় পৌঁছে একটি ঘরে বন্দি করে তাঁকে ধর্ষণ করা হয়। মাদ্রাসার আর দুই শিক্ষক সেই সময় সেখানেই উপস্থিত ছিল, কিন্তু তাঁরা নাবালিকার কোন সাহায্য করেনি।

সকাল ৭ঃ৩০ নাগাদ বাড়ি পৌঁছে নাবালিকা তাঁর পরিজনকে সমস্ত কথা খুলে বলে। নাবালিকার কথা শোনার পর পরিজনেরা তড়িঘড়ি মাদ্রাসায় যায়, কিন্তু ততক্ষনে অভিযুক্তেরা মাদ্রাসায় তালা মেরে পালিয়ে গেছিল। পরিজনেরা মাদ্রাসা শিক্ষকের উপর পয়সা নিয়ে মামলা নিষ্পত্তি করার চাপ সৃষ্টি করার অভিযোগ দায়ের করে। আরেকদিকে প্রধান অভিযুক্ত ধর্ষক মৌলানা-কে গ্রেফতার করে থানায় জিজ্ঞাসাবাদ চালালে মৌলানা বলে, ধর্ষিতা ১৫ বছর না, ১৯ বছর বয়সী। মৌলানা বলে, ধর্ষিতার পরিবারের সবাই মিথ্যা বলেছে, সে ওই নাবালিকাকে বিয়ে করেছিল। আর তারপরেই সে এই কাজ করেছে।



Source link

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close