১০ বছরের বাচ্চা মেয়েকে ধর্ষণ করে হাতেনাতে ধরা পড়লো ৫৫ বছর বয়সের কালাম আনসারী।



দেশজুড়ে রেপ জিহাদের ঘটনা নিত্য হয়ে উঠেছে। একের পর এক ধর্ষনের ঘটনা সামনে আসছে কিন্তু মিডিয়া এই ইস্যুতে মুখ খুলতে কোনোভাবেই রাজি নয়। এমনি একটা ঘটনা বিহারের শীয়হার এলাকা থেকে আসছে যেখানে ১০ বছরের এক হিন্দু মেয়েকে ধর্ষণ করেছে কালাম আনসারি নামের ব্যাক্তি। কালাম আনসারী কোনো নাবালক নয়, কালাম আনসারী মসজিদ ডলার বাসিন্দা, বয়স ৫৫ বছর। জঘন্য অপরাধ করার সময় স্থানীয়রা কালাম আনসারীকে হাতেনাতে পাকড়াও করেছিল।

পুলিশ কালাম আনসারীকে গ্রেফতার করেছে এবং বাচ্চা মেয়েটিকে মেডিকেলের জন্য পাঠানো হয়েছে। শীয়হারের নিবাসী অনিস ঝা বলেছনে, আমরা এলকার উকিলদের ঘটনাটি ব্যাপারে জানিয়েছি তারা কেউ অপরাধীর হয়ে মামলা লড়বে না। ঘটনাটিকে নিয়ে এলাকার মধ্যে প্রচণ্ড আক্রোশ রয়েছে। এলাকার সাংসদ, প্রাক্তণ সাংসদ সকলেই এই ঘটনার জন্য অপরাধীর ফাঁসির দাবি করেছে। স্পীড ট্রায়াল করে মামলার অতি শীঘ্রই তদন্ত করানোর দাবি উঠেছে। বিশ্ব হিন্দু পরিষদের স্থানীয় সংগঠন লাগাতার হওয়া রেপ জিহাদ নিয়ে আলোচনার জন্য একটা সভার আয়োজন করেছে।

কিছুদিন আগেই বিহারের বেগুসরাইতে এক হিন্দু বাড়িতে ঢুকে ধর্ষণের চেষ্টা করেছিল কট্টরপন্থীরা। বেগুসরাইয়ের এক এলাকায় হিন্দুরা সংখ্যালঘু হয়ে পড়ায় সেখান থেকে তাদের পালয়ন করার জন্য হুমকিও দেওয়া হয়েছে। উত্তরপ্রদেশ থেকেও পর পর বেশ কয়েকটি ধর্ষণের ঘটনা সামনে এসেছিল। প্রসঙ্গত জানিয়ে দি, রেপ জিহাদ নিয়ে মিডিয়া, দেশের সরকার বা বিরোধী দল কেউই মুখ খোলেনি। কিছু মিডিয়া ঘটনাগুলিকে ধামাচাপা দেওয়ার জন্য ভরপুর প্রয়াস করছে। ভারতের আইন ব্যাবস্থা বেশিরভাগ ইংরেজদের দ্বারা তৈরি হওয়ায় ধর্ষণকারীদের সাজা দেওয়া খুব কঠিন হয়ে পড়ে। ধর্ষকদের যাতে ৩০ দিনের মধ্যে সাজা দেওয়া হয় তার জন্য নিয়ম জারি করার দাবিও উঠতে শুরু হয়েছে।





Source link

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close