সিপিএমও খিল্লি ওড়ালো তৃণমূলের! তৃণমূল ডুবন্ত নৌকা, পাশে দাঁড়াবো দিবাস্বপ্ন দেখবেন না: সুজন চক্রবর্তী


এই মুহূর্তে রাজ্যে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের অবস্থা আশঙ্কাজনক। ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে বিজেপি ১৮ টি সিট পাওয়ার পর থেকে রাজ্য রাজনীতিতে ক্রমশ দুর্বল হয়ে পড়ছে তৃণমূল কংগ্রেস অপরদিকে ব্যাপক হারে সাধারণ মানুষের সমর্থন পেয়ে রাজ্যের সব থেকে শক্তিশালী রাজনৈতিক দল হিসেবে উঠে আসছে ভারতীয় জনতা পার্টি। এই মুহূর্তে দাঁড়িয়ে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বুঝে গিয়েছেন যে তৃণমূলের একার দ্বারা আর বিজেপিকে আটকানো সম্ভব নয়। তাই বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের অন্য দুই বিরোধী রাজনৈতিক দল সিপিএম এবং কংগ্রেস কে নিয়ে একজোটে বিজেপির মোকাবিলা করার কথা বলেছেন। কিন্তু মমতার সেই জোটবার্তায় বিন্দুমাত্র অগ্রহ নেই সিপিএম এর। সিপিএম এর তরফে মমতার জোটবার্তাকে পুরোপুরি ভাবে প্রত্যাখ্যান করে দেওয়া হয়েছে। সেই সাথে সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর এই জোটবার্তাকে দিবাস্বপ্ন বলেও কটাক্ষ করেছেন। উনার কথায় তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দিবাস্বপ্ন দেখছেন।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই প্রস্তাবের পরেই সিপিএম কংগ্রেসের পাশাপাশি কটাক্ষ ভেসে আসে বিজেপির তরফে। বিজেপি নেতা মুকুল রায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে কটাক্ষ করে বলেন যে, উনি বুঝে গিয়েছেন যে রাজ্যে বিজেপির সরকার গড়া আটকানো সম্ভব নয়। এছাড়াও তৃণমূল কংগ্রেস কে ‘ডুবন্ত নৌকা’ বলে কটাক্ষ করেন সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী। উনি আরও বলেন উনার কথায় তৃণমূল ডুবন্ত নৌকা আর এই পরিস্থিতিতে আমরা তৃণমূলের পাশে দাঁড়াবো এমন দিবাস্বপ্ন যেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় না দেখেন।

উল্লেখ্য, এইদিন বিধানসভা অধিবেশনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতিতে বিজেপি একমাত্র অসৎ রাজনৈতিক দল বাকি সব রাজনৈতিক দল গুলি সৎ। উনি সিপিএম ও কংগ্রেসের প্রশংসা করে বলেন যে, আমরা সকলে একসাথে পথ চলবো এবং বিজেপির বিরুদ্ধে একজোটে প্রতিরোধ গড়ে তুলবো।



Source link

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close