বেড়িয়ে এলো চাঞ্চল্যকর খবর! পশ্চিমবঙ্গের মাদ্রাসা গুলোর সাহাজ্যে চালানো হচ্ছে জঙ্গি কার্যকলাপ



সামনে উঠে এলো কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট। ওই রিপোর্ট অনুযায়ী, বাংলাদেশের জঙ্গি সংগঠন গুলো ভারতে জঙ্গি কার্যকলাপ চালানোর জন্য পশ্চিমবঙ্গের মাদ্রাসার গুলো ব্যাবহার করছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক জানায় যে, তাঁরা গোপন তথ্য পেয়েছে যে, বাংলাদেশের জঙ্গি সংগঠন জামাত-উল-মুজাহিদ্দিন বাংলাদেশ (জেএমবি) রাজ্যের বর্ধমান জেলা আর মুর্শিদাবাদের মাদ্রাসা গুলোকে জঙ্গি কার্যকলাপের জন্য ব্যাবহার করছে। আর এই দুই জেলার মাদ্রাসার মাধ্যমে মুসলিম যুবকদের কট্টর বানানো হচ্ছে, আর তাঁদের জঙ্গি সংগঠন গুলোতে ভর্তি করানো হচ্ছে।

গৃহ রাজ্য মন্ত্রী জি. কিশন রেড্ডি লোকসভা একটি প্রশ্নের লিখিতি জবাবে এই তথ্য দেন। উনি বলেন, এই ব্যাপারে পশ্চিমবঙ্গের সরকার আর সেখানকার গোয়েন্দা সংস্থা গুলোর সাথে এই ব্যাপারে নিয়িমত ভাবে কথা চলছে।

আরেকদিকে তৃণমূলের মহাসচিব তথা রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জী বলেন, ‘আমি এখনো সরকারের লিখিত বয়ান পড়িনি। আমি সবার আগে এই বয়ান পড়ব, তারপর কোন প্রতিক্রিয়া দেবো।”

আপনাদের জানিয়ে রাখি, কেন্দ্র সরকার বহু আগেই জামাত-উল-মুজাহিদ্দিন বাংলাদেশ (জেএমবি) কে জঙ্গি সংগঠন ঘোষণা করে রেখেছে। এই সংগঠনের উপরে ২০১৬ সালে বাংলাদেশের একটি রেস্তোরাঁতে হামলা করার অভিযোগ আছে। মিডিয়া রিপোর্টে এটাও বলা হচ্ছে জে, জামাত-উল-মুজাহিদ্দিন বাংলাদেশ (জেএমবি) কে পাকিস্তানের জঙ্গি সংগঠন লস্কর-এ-তৈবা আর্থিক সাহায্য করছে। এই সংগঠন বাংলাদেশের সরকারকে ভেঙে দেশে শারিয়া আইন লাগু করতে চাইছে।

আপনাদের জানিয়ে রাখি যে, লোকসভা ভোটে বিজেপি প্রচার করেছিল যে, পশ্চিমবঙ্গে জঙ্গি সংগঠন গুলো চরম পরিমাণে অ্যাকটিভ। সরকার জানিয়েছে যে, লোকসভা নির্বাচনের আগে থেকেই জামাত-উল-মুজাহিদ্দিন বাংলাদেশ (জেএমবি) তাঁদের গতিবিধি বাড়িয়েছে পশ্চিমবঙ্গে।



Source link

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close