মুসলিম মহিলাদের ন্যায় দিলেন মোদী সরকার, লোকসভায় পাশ হলো তিন তালাক বিল


লোকসভায় মনসুন অধিবেশনে বৃহস্পতিবার তিন তালাক বিল পাশ হয়। এই বিল নিয়ে দিনভর একের পর এক তর্ক-বিতর্ক হয় সংসদে। এই বিলের পক্ষে ৩০৩ এবং বিপক্ষে ৮২ টি ভোট পড়ে। কংগ্রেস, ডিএমকে, এনসিপি, টিডিপি, জেডিইউ এবং তৃণমূল এই বিলের বিরোধিতা করে। এমনকি তৃণমূল সমেত সমস্ত বিরোধী দলের সাংসদেরা ভোটাভুটি তে হেরে ওয়াক আউট করেন।

এই বিল গত লোকসভাতেও পাশ হয়েছিল, কিন্তু রাজ্য সভায় গিয়ে এই বিল আটকে যায়। ১৬ তম লোকসভা কার্যকাল শেষ হওয়ার পর মোদী সরকার এই বিলে কিছু বদল এনে, আবারও সংসদে পেশ করে। এর সাথে সংসদীয় কার্জমন্ত্রী লোকসভার অধিবেশন বাড়িয়ে আগামী ৭ই আগস্ট পর্যন্ত করার দাবি তোলেন। এরপর লোকসভার স্পীকার এই দাবি মেনে অধিবেশন ৭ই আগস্ট পর্যন্ত বাড়িয়ে দেন।

লোকসভায় তিন তালাক বিল পাশ করানো জন্য ভোটিং করানো হয়। সংসদে সরকারের পক্ষে ৩০৩ আর বিপক্ষে ৮২ টি ভোট পড়ার সাথে সাথে আবারও লোকসভায় তিন তালাক বিল পাশ করিয়ে নিয়ে মোদী সরকার। All India Majlis-e-Ittehadul Muslimeen এর সাংসদ তথা প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়াইসি এই বিলের বিরুদ্ধে আওয়াজ তোলেন। উনি এই বিলে সংশোধন করার দাবি করেন, কিন্তু ওনার দাবি খারিজ হয়ে যায়।

তিন তালাক নিয়ে All India Majlis-e-Ittehadul Muslimeen এর প্রধান তথা সাংসদ আসাদউদ্দিন ওয়াইসি বলেন, এই বিল মুসলিম মহিলাদের বিপক্ষে। উনি বলেন, এই বিল মুসলিম মহিলাদের বিপক্ষে অপরাধ করবে। ইসলামে ৯ প্রকারের তালাকের বিধান আছে। এই আইন অনুযায়ী, যদি স্বামীকে গ্রেফতার করা হয়, তাহলে স্ত্রীর ভরণপোষণ কি করে হবে? স্বামী কি জেলে বসে স্ত্রীর ভরণপোষণ করবে?

আসাদউদ্দিন ওয়াইসি আরও বলেন, স্বামীর গ্রেফতারির পর সে কি স্ত্রীর ভরণপোষণ করতে পারবে? যদি স্বামী জেলে চলে যায়, তাহলে স্ত্রী কি তিন বছর পর্যন্ত তাঁর অপেক্ষা করবে? ওই মহিলাকে বিয়ের বন্ধন থেকে মুক্ত হওয়ার জন্য অধিকার দেওয়া দরকার।

ওয়াইসি বলেন, জামিন দেওয়ার অধিকার শুধুমাত্র আদালতের আছে। কিন্তু হত্যাতেও পীড়িত ব্যাক্তির কথা শোনা হয়না। তিন তালাক বিল এনে সরকার বিয়ে খতম করতে চাইছে, আর মহিলাদের রাস্তায় নামাতে চাইছে। মুসলিমদের তাঁদের ধর্ম থেকে দূরে রাখার জন্য সরকার এই বিল লাগু করতে চাইছে। ওয়াইসি বলেন, ইসলামে বিয়ে মানে জন্ম জন্মান্তরের সম্পর্ক না। ইসলামে বিয়ে মানে এটি কন্ট্রাক্ট। আর এটা শুধু একটা জীবনের জন্য, আমরা এতে খুশি। এর জ্বালা সবাই বোঝে। আর এই জন্য সংসদে সবাই হাসছেন।

 

 



Source link

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close