অরুন জেটলি সমেত বিজেপি এক বছরে হারিয়েছে সাতজন দিজ্ঞজ নেতা


বিজেপির প্রবীণ নেতা আর প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী অরুন জেটলি শনিবার দিল্লীর এইমস-এ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। অনেকদিন ধরেই তিনি শারীরিক অসুস্থতায় ভুগছেন। অসুস্থতার কারণে ৯ই আগস্ট ওনাকে দিল্লীর এইমস-এ ভর্তি করানো হয়েছিল। ভারতীয় জনতা পার্টি বিগত এক বছরে অরুন জেটলি সমেত সাতজন বড় নেতাকে খুইয়েছে। সেই সাতজন নেতাদের মধ্যে অন্যতম হলে, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ী, প্রাক্তন বিদেশ মন্ত্রী সুষমা স্বরাজ এবং প্রাক্তন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মনোহর পরিকর।

অটল বিহারী বাজপেয়ীঃ প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অথা বিজেপির প্রবীণ নেতা শ্রী অটল বিহারী বাজপেয়ী ১৬ই আগস্ট ২০১৮ সালে আমাদের ছেড়ে চলে যান। অটল বিহারী বাজপেয়ী-এর কিডনিতে সংক্রমণ হওয়ার পর ১১ জুন ২০১৮ তে এইমসে ভর্তি করানো হয়েছিল। অটল বিহারী বাজপেয়ী ১৯২৪ সালে ২৫ ডিসেম্বর মাসে জন্মগ্রহন করেছিলেন। তিনি চার দশকের থেকেও বেশি সময় বিজেপির সাংসদ ছিলেন। এছাড়াও তিনি তিনবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী হন।

মনোহর পরিকরঃ গোয়ার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা দেশের প্রাক্তন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মনোহর পরিকর ১৭ মার্চ ২০১৯ এ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। উনি অনেক বছর ধরেই ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন। ক্যান্সারের জন্য তিনি কয়েকমাস আমেরিকাতে চিকিৎসা করান। তিনি চারবার গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন। এমনকি অসুস্থ থাকাকালীন তিনি নাকে নল লাগিয়ে নিজের কাজ করে গেছেন। ওনার এই কাজের জন্য গোটা ভারতের মানুষ ওনাকে খুব ভালোবাসেন।

সুষমা স্বরাজঃ বিজেপির প্রবীণ নেত্রী তথা মোদী সরকারের প্রাক্তন বিদেশ মন্ত্রী সুষমা স্বরাজ ৬ আগস্ট ২০১৯ এ ৬৭ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। সুষমা স্বরাজকে দেশের প্রথম মহিলা বিদেশ মন্ত্রী হিসেবে জানা যায়। উনি ১৯৫২ সালে ১৪ই ফেব্রুয়ারি জন্মগ্রহণ করেছিলেন। উনি বিদেশ মন্ত্রী থাকাকালীন বিদেশ আটকে পড়ে যাওয়া ভারতীয়দের নিমিষের মধ্যে সাহায্য পাঠিয়ে দেশে ফিরিয়ে আনতেন। ওনার এই কাজের প্রশংসা শুধু ভারতেই না, গোটা বিশ্বে হয়।

অটল বিহারী বাজপেয়ী, মনোহর পরিকর, সুষমা স্বরাজ এবং অরুন জেটলি ছাড়া বিজেপির আরও তিন প্রবীণ নেতাকে কয়েকমাসের মধ্যেই হারিয়েছে। সেই নেতারা হলেন অনন্ত কুমার, মদনলাল খুরানা, বলরামজী দাস টন্ডন। এরা সকলেই বিজেপির বড় মাপের নেতা ছিলেন, আর এদের শূন্যস্থান পূরণ করার মতো এখনো পর্যন্ত কেউ নেই।



Source link

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close