করাচির সিমেন্ট ফ্যাক্টরিতে এক পাকিস্তানিকে মেরে আধমরা করলো ৫ জন চিনী ইঞ্জিনিয়ার!


পাকিস্তান এখন চীনের দাস হয়ে গেছে। চীনের, অনেক ইঞ্জিনিয়ার এবং কর্মচারীরা পাকিস্তানে চীনা প্রকল্পে কাজ করছে। এছাড়া চীন জানে পাকিস্তান চীনের অর্থের উপর নির্ভর করে চলছে তাই চিনিরা পাকিস্তানের লোকেদের মানুষ হিসেবে নয় বরং পশুর চোখে দেখছে। পাকিস্তানের লোকেদের সাথে জানোয়ারের মতোই ব্যবহার করছে চীনের ইঞ্জিনিয়ার ও কর্মচারীরা। শুধু তাই নয়, পাকিস্তানের ভিতরে চিনের দ্বারা পাকিস্তানিদের মারধরের অনেকগুলি মামলা উঠে এসেছে। এখন আবার একইরকম ঘটনা করাচি থেকেও আসছে।, করাচির একটি সিমেন্ট কারখানায় ৫ জন চীনি একজন পাকিস্তানিকে খারাপভাবে মারধর করেছে।

ঘটনাটি হলো,কিছু চীনের লোকেরা একজন পাকিস্তানিকে ফ্যাক্টরির ভিতর বসে নামাজের মুদ্রায় বসে নামাজ পড়তে দেখে নেয়। তারপর কিছু না বলেই চীনের লোকেরা সেই পাকিস্তানকে মারা শুরু করে দেয়। পাকিস্তানের অভ্যন্তরে এই সমস্ত ঘটনা ঘটেছিল। পাকিস্তান,  একটি ইসলামিক দেশ, যেখানে চীনারা একটি পাকিস্তানিকে নামাজ পড়ার জন্য মেরে আধ-মরা করে দেয়। আর পাকিস্তানি পুলিশরা এমনকি সেই চিনীদের বিরুদ্ধে মামলা পর্যন্ত দায়ের করেনি।

পাকিস্তানীদের সাথে জানোয়ারের মতো ব্যবহার করছে চীনের লোকেরা। এটা বোঝা যাচ্ছে যে পাকিস্তানের আরো বেশি খারাপ দিন আসতে চলেছে। এছাড়া সূত্র থেকে জানা গেছে যে চীনের লোকেরা পাকিস্তানি মেয়েদের উপরেও মারাত্মক পরিমানে অত্যাচার করছে, তাদের শোষণ করছে। অনেক পাকিস্তানি মেয়েদের বিদেশে বিক্রিও করে দেওয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।





Source link

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close