ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত আদালতের: অযোধ্যায় হবে রাম মন্দির, মুসলিমদের দেওয়া হবে আলাদা জমি।


প্রায় ৫০০ বছর অপেক্ষার পর এবার অযোধ্যা বিতর্কের অবসান হতে দেখা যাচ্ছে। সুপ্রিম কোর্টে ৭০ বছর ধরে আইনি বিষয়ে জড়িত এই মামলা খুবই সংবেদনশীল। যার জন্য দেশের প্রশাসন ব্যাবস্থাকে কড়া রাখা হয়েছে। যারপর আদালত এই ইস্যুতে রায় শোনানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। রাজনৈতিক, ধর্মীয় ও সামাজিকভাবে সংবেদনশীল এই মামলায় ৪০ দিনের ম্যারাথন শুনানির পরে ১৬ অক্টোবর সুপ্রিম কোর্ট রায় সংরক্ষণ করেছিল। প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গোগোই, বিচারপতি এস এ ববদে, ডিওয়াই চন্দ্রচুড়, অশোক ভূষণ ও এস আবদুল নাজিরের সংবিধান বেঞ্চ সকাল সাড়ে দশটা থেকে তাদের রায় পড়া শুরু করেছিলেন।

এখন পাওয়া খবর অনুযায়ী, আদালত শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের দাবি খারিজ করেছে। একই সাথে নির্মোহী আখড়ার দাবিও খারিজ করেছে। আদালত জানিয়েছেন, বাবরি মসজিদ খালি স্থানে তৈরি হয়নি। অর্থাৎ মসজিদ তৈরি করা হয়েছিল অন্য কোনো স্থাপত্য এর উপর। এখন এই স্থাপত্য যে রাম মন্দির তাও আদালত ইঙ্গিত দিয়েছে। আদালতের ASI এর গবেষণাকে মান্যতা দিয়েছে। ASI দাবি করেছিল যে বাবরি মসজিদের নীচে রাম মন্দিরের ধ্বংসাবশেষ ছিল।

আদালত মুসলিমদের আলাদা স্থান দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। দুই পক্ষের মধ্যে দ্বন্দ যাতে না বৃদ্ধি হয় সেদিকে খেয়াল রেখে আদালত এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অন্যদিকে বিতর্কিত স্থানে মন্দির ছিল তার ইঙ্গিত প্রকাশ করেছে। বিতর্কিত স্থান রামলীলা বিরাজমানের পক্ষে এসেছে। অন্যদিকে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের দাবি পেছনে রয়ে গেছে। কিন্তু মুসলিমদের মনে যাতে অসন্তোষ না তৈরি হয় তার জন্য তাদের আলাদা জমি দেওয়া হবে। মন্দিরের জন্য বিশেষ ট্রাস্ট গঠন করে তাদের মন্দির নির্মাণের দায়িত্ব দেওয়া হবে বলে জানা যাচ্ছে।



Source link

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close